আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য 7 টি স্বাস্থ্য পরামর্শ

0
308

আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য 7 টি স্বাস্থ্য পরামর্শ

আজকের সমাজে, সমস্ত কিছু খুব দ্রুত চলে এবং কখনও কখনও আমাদের জীবনধারা এবং অভ্যাসগুলি আমাদের আরও ভাল অনুভব করতে সহায়তা করে কিনা তা ভাবার সময় নেই। এই ব্লগে আমরা আপনাকে এমন কিছু স্বাস্থ্য টিপস দেওয়ার চেষ্টা করব যা আপনাকে আপনার জীবনযাত্রার অভ্যাসগুলি উন্নত করতে সহায়তা করবে।

7 টি স্বাস্থ্য পরামর্শ সহ এটি কীভাবে করা যায় তা আলোচনা করা হলো-

1. আপনার ডায়েট এর প্রতি লক্ষ রাখুন

সুষম ডায়েট উপকারী স্বাস্থ্যের প্রভাবক আর এটি হ’ল, আমাদের নিজেদেরকে সঠিকভাবে খাওয়ানো। এর অর্থ হল আমাদের দেহকে সর্বোত্তম কার্যকারিতার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত পুষ্টি সরবরাহ করা এবং এটি আমাদের ওজন বজায় রাখতে সহায়তা করে যা রোগের ঝুঁকি হ্রাস করে। যেমন কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ, টাইপ 2 ডায়াবেটিস বা উচ্চ কোলেস্টেরল। আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি। 

এই সহজ অভ্যাসগুলি নোট করুন যা আপনাকে স্বাস্থ্যকর খেতে সহায়তা করবে:

  • আপনার ডায়েটে প্রতিদিন ফল, শাকসবজি রাখুন। হয়। এমনকি আপনি শাকসবজি দিয়ে সাধারণ রেসিপি বানিয়ে খাবারকে সমৃদ্ধ এবং মজাদার করে তুলতে পারেন।
  • সর্বদা একই সময়ে খাবার খাওয়া। আমরা জানি যে আজকাল আমাদের বিভিন্ন কাজের কারণে সর্বদা একই সময়ে খাবার খাওয়া হয়ে গিয়েছে। তাই আমরা একই সময়ে খাওয়ার চেষ্টা করব।
  • স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকস বেছে নিন যেমন নন-ফ্রাইড বাদাম বা কোনও ফলের টুকরা যা আপনাকে পূরণ করার পাশাপাশি আপনার শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করে।
  • লবণ এবং চিনির ব্যবহার হ্রাস করুন। কারণ তারা কার্ডিওভাসকুলার এবং বিপাকীয় রোগের ঝুঁকিটিকে যথেষ্ট পরিমাণে বাড়িয়ে তোলে।
  • আপনার শরীরকে হাইড্রেটেড রাখুন: প্রতিদিন দুই লিটার জল পান করার করুন। জল খাওয়া আপনাকে বিষাক্ত পদার্থগুলি হজম করতে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করে।

2. অ্যালকোহল থেকে সাবধান!

আপনি কি জানেন যে অ্যালকোহল বিশ্বজুড়ে প্রতি বছর 3 মিলিয়ন মানুষের মৃত্যুর কারণ। এটি ডাব্লুএইচওর রিপোর্ট হতে সংগৃহীত। যদি আপনি অ্যালকোহল গ্রহণ করেন তবে এটি মাঝারি উপায়ে করা সবচেয়ে ভাল।আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি।  

দ্রুত ওজন বাড়ানোর উপায় | কিভাবে দ্রুত মোটা হবেন বাংলা টিপস 2021 click here

3. ধূমপান বন্ধ করুন

ধূমপানটি অ্যাকুলার ছানি থেকে শুরু করে ক্যান্সার পর্যন্ত অসংখ্য প্যাথলজির সাথে যুক্ত, যার ঝুঁকি দ্বিগুণ।

এছাড়াও, দীর্ঘস্থায়ী বাধাজনিত পালমোনারি রোগ থেকে 90% এরও বেশি মৃত্যুর জন্য এটি দায়ী এবং হৃদরোগ এবং সেরিব্রোভাসকুলার সমস্যার ঝুঁকি বাড়ায়। আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি। 

যদি আপনি ধূমপান করেন তবে আপনার অবশ্যই অবগত থাকতে হবে যে আপনার স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করার পাশাপাশি আপনি আপনার আশেপাশের লোকদেরও ক্ষতিগ্রস্থ করছেন, কারণ তারা সিগারেটের ধোঁয়া এবং এর সমস্ত বিষাক্ত পদার্থ নিষ্ক্রিয়ভাবে শ্বাস নেয়।

4. খেলাধুলা করুন

খেলাধুলা স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রার অন্যতম স্তম্ভ। আপনি যদি মনে করেন যে আপনার কাছে সময় নেই বা আপনার শারীরিক ক্ষমতা পর্যাপ্ত নয়, তবে চিন্তা করবেন না আপনি দৈনিক ভিত্তিতে 30 মিনিটের জন্য ঝাঁকুনিপূর্ণভাবে হাঁটা। এর অনেকগুলি স্বাস্থ্য সুবিধা রয়েছে:

  • আপনার ওজন সঠিক মাত্রায় রাখতে সহায়তা করে
  • রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে এবং করোনারি হার্ট ডিজিজের ঝুঁকি হ্রাস করে।
  • ফ্রেস ঘুম হয়।
  • অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাস করে।
  • আত্মমর্যাদা বৃদ্ধি করে এবং হতাশাকে দূরে রাখে।

5. আপনার স্বাস্থ্যবিধির যত্ন নিন

ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি এবং বাড়ির পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা খুব জরুরি। কিছু প্রাথমিক টিপস হ’ল:

  • বাড়িতে পৌঁছে খাওয়ার আগে এবং যখন আপনি কোন প্রাণীর সংস্পর্শে ছিলেন তখন আপনার হাত ধুয়ে ফেলুন।
  • আপনার ত্বকে প্রভাবিত করতে পারে এমন জীবাণু নিয়ন্ত্রণ করতে প্রতিদিন গোসল করুন। বিশেষত, শারীরিক অনুশীলন করার পরে গোসল করা গুরুত্বপূর্ণ, যেহেতু এটি আমাদের ত্বকের সংস্পর্শে আসে এমন পৃষ্ঠতলের উপস্থিত ব্যাকটেরিয়ার সাথে ঘাম ঝরায়।

6. ভাল ঘুম

ঘুমের অভাবে আমাদের দেহের সমস্ত ক্রিয়াকলাপ প্রভাবিত হয়। হরমোন, ইমিউন বা শ্বাসযন্ত্রের সিস্টেম থেকে রক্তচাপ বা কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্য পর্যন্ত। আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি। 

বয়সের উপর নির্ভর করে দিনে কত ঘন্টা ঘুমের প্রয়োজন তা নিম্নরূপ:

  • 3 মাস অবধি নবজাতক: 14-17 ঘন্টা।
  • 11 মাস পর্যন্ত বাচ্চা: 12-15 ঘন্টা।
  • 2 বছর পর্যন্ত শিশুরা: 9-15 ঘন্টা।
  • 5 বছর পর্যন্ত বাচ্চা: 10-13 ঘন্টা।
  • 13 বছর পর্যন্ত শিশুরা: 9-11 ঘন্টা।
  • 17 বছর বয়সী কিশোর-কিশোরী: দিনে 10 ঘন্টা।
  • প্রাপ্তবয়স্কদের: প্রতিদিন 7-9 ঘন্টা।

7. আপনার মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে ভুলবেন না!

আমরা যেমন শুরুতে বলেছি যে, মানসিক সুস্বাস্থ্য স্বাস্থ্যের একটি মৌলিক অঙ্গ। মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্য ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত, কারণ একটি ভাল না হলে এটি অন্য এবং এর বিপরীতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি। আপনার মনের পাশাপাশি আপনার শরীরের যত্ন নেওয়ার বিষয়ে চিন্তা করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য এটি অনুসরণ অনেক জরুরি।

এখানে কিছু টিপস যা আপনাকে সহায়তা করতে পারে:

  • মানুষ সামাজিক জীব, তাই পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে আপনার আন্তঃব্যক্তিক সম্পর্ক গভীর রাখুন।
  • প্রয়োজনে অন্যের সহায়তা চাইতে শিখুন।
  • বিশ্রাম করুন, ভাল খাওয়া এবং খেলাধুলা করুন।
  • নিজেকে মূল্য দিন এবং নিজেকে যেমন নিজেকে মেনে নিন।
  • দিনে কয়েক মিনিট সময় নিন। ধ্যান মানসিক সুস্থতার উন্নতির জন্য একটি ভাল উৎস।

আপনার শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য 7 টি স্বাস্থ্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে। আপনি জানতে পারবেন কিভাবে আপনি সুস্থ থাকবেন। আপনি স্বাস্থ সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন।

উপরোক্ত নিয়ম গুলো মেনে চলুন আর সর্বদা সুস্থ থাকুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here